Header Ads

আজ বাংলা
ইংরেজি

আসুন বিয়ে করি, অত:পর...




প্রযুক্তির উন্নতিতে আমরা অনেক সুবিধা পেয়েছি। কঠিন কাজ সহজে করতে পারছি। ঘরে বসে কেনাকাটা থেকে শুরু করে,লেখাপড়াও চালিয়ে দিচ্ছি অনলাইনের মাধ্যমে।


সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। প্রযুক্তির অন্যতম একটি ব্যবস্থা। ঘরে বসে পুরো বিশ্বের সংবাদ জানা যায় এই ব্যবস্থার মাধ্যমে। আমেরিকা,লন্ডন, ফ্রান্স, চীন, জাপানসহ পৃথিবীর সকল রাষ্ট্রের মানুষের সাথে কথা বলা,একজন অপরজনের মতপ্রকাশ জানতে পারে মুহূর্তের মধ্যে।


সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অনেকেই গ্রুপ খুলছেন। খেলাধুলা,আড্ডা, লেখপড়া সহ বিভিন্ন রকমের গ্রুপ। 

ইদানীং দেখা যাচ্ছে অনেক বিয়ের গ্রুপ খোলা হয়েছে। 

পাত্র-পাত্রী চাই পোস্ট করছেন একজন। সে পোস্টে হুমড়ি খেয়ে পড়ছে, পাত্রপাত্রীর দল। 

কেউকেউ সরাসরি মন্তব্যবক্সেই বিয়ের প্রস্তাব দিচ্ছেন। অনেকে ভাইয়ের জন্য পাত্রী খুঁজছেন।

কেউতো আবার এক সাপ্তাহের ভেতরে বিয়ে করারও প্রস্তাব দিচ্ছেন। 


আমরা আনন্দিত হতে পারি ইহা ভেবে যে, হয়তো প্রতিদিন শতশত যুবক-যুবতী যুগলবন্দী হচ্ছেন। 

কিন্তু না!  

জেনে আশ্চর্য হবেন যে, এসকল গ্রুপ থেকে বিয়ে হওয়ার কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

প্রশ্ন জাগতে পারে, তাহলে এতশত প্রস্তাবকারী কোথায় গেলো?  যারা মন্তব্যবক্স আবেগের সাগরে ভাসিয়ে দিতো! 


হ্যাঁ! ওদের ৮০% পুরুষ নারীদের ইনবক্সে গিয়ে প্রস্তাব দেয়। তারপর ফটো দাবি করে। 

ফটো দিলে বা না দিলে,অসভ্য ভাষায় কথাবার্তা বলে। 

এমন অভিযোগ পাওয়া যায় যে,ছেলেরা মেয়েদের ইনবক্সে খারাপ মেসেজ ও ফটো পাঠায়।  

যা অত্যন্ত লজ্জার ব্যপার।


এই পরিস্থিতির ভুক্তভোগী marriage media bd.dhaka এর সদস্য RuMa । 

তিনি গ্রুপে একটা পোস্ট করেন," সমাজে অনেক বিকৃত মস্তিষ্কের মানুষের বাস। মেসেজ দিয়ে খারাপ খারাপ কথা বলে".


এভাবে একজন দুজন মেয়ে পোস্ট করলেও অনেকে লজ্জায় চুপ থাকেন। 


বিয়ে। রাসূল সা. এর সুন্নাত। বিয়ে একটি পবিত্র কাজ। বিয়ে নিয়ে অসভ্যতা করি, এমন খারাপ স্বভাবের মানুষ আমি, আমরা!  

আমাদের উচিৎ ছিলো, কেউ বিয়ে করতে চাইলে তাকে সহযোগিতা করা। অথচ আমরা অসভ্যতার চর্চা করি। 


আমরা ভালো হবো কবে?


লেখক, হিফজুর রাহমান

সম্পাদক : দ্যা সুন্নাহ বিডি


কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.