Header Ads

আজ বাংলা
ইংরেজি

মাদরাসায় হামলা ও শিক্ষক নির্যাতনে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে ; রশিদুর রাহমান,পীর সাহেব বরুণা দা.বা.



কাউসার সিদ্দিক ; চট্টগ্রাম ফটিকছড়িতে নানুপুর দারুচ্ছালাম ঈদগাহ মাদরাসার নির্মাণকে কেন্দ্র করে ভাংচুর ও তৌহীদি জনতার উপর গুলিবর্ষণ ও চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার তালিমুল কোরআন ওয়াল হিকমাহ মাদরাসার হিফজ বিভাগের শিক্ষক হাফেজ মুহাম্মদ ওমর ফারুককে মারধর এবং মাদরাসা ভাংচুরের ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের উপদেষ্টা,আঞ্জুমানে হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশের আমীর,জামিয়া শেখবাড়ীর প্রতিষ্টাতা প্রিন্সিপাল আল্লামা মুফতি রশিদুর রহমান ফারুক বর্ণভী (পীর সাহেব বরুণা) দা.বা.



পীর সাহেব বলেন বিভিন্ন জায়গায় দ্বীনি প্রতিষ্টানসমূহের উপর এমন বর্বোরোচিত হামলা ও ষড়যন্ত্র দুঃখজনক৷ এসব ক্ষেত্রে প্রসাশনের অবহেলা ও দায়িত্বহীনতা সহজেই অনুমিত হয়৷


হযরত বলেন আমরা এগুলোর সুষ্টু তদন্ত ও সঠিক বিচার চাই৷ অপরাধীদের দ্রুত বিচারের সম্মুখিন করার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানাচ্ছি৷ 



তিনি বলেন আমরা উলামায় কেরামদেরকে বর্তমান সময়ে খুব সতর্ক থাকতে হবে৷ ঈমান ও ইসলামী তাহযীব তামাদ্দুন রক্ষার দূর্গ কওমী মাদরাসা গুলোকে ধ্বংস ও সমাজ বিচ্ছিন্ন করার জন্য তাগুতি শক্তি উঠেপড়ে লেগেছে৷  পাশাপাশি ঠুনকো একটা অপরাধ পেলেই সত্য মিথ্যা তদন্ত না করে ঢালাওভাবে প্রচার করে যাচ্ছে বর্তমান মিডিয়াগুলো৷ যার প্রত্যেকটিই কওমী মাদরাসার বিরুদ্ধে ধারাবাহিক ষড়যন্ত্রের অংশ৷


মাদরাসা ও ধর্মীয় মারকাযের দায়িত্বশীল,জিম্মাদার,শিক্ষক,ছাত্র সবাইকে সর্বোচ্চ সতর্কতার সাথে দ্বীনি কাজ আঞ্জাম দেয়সর আহ্বান করে তিনি৷ পাশাপাশি বর্তমান আলোচিত ঘটনাগুলোতে যেসব তরুণ উলামায়ে করাম বিশেষ ভূমিকা রাখছন তাদেরকেও ধন্যবাদ জানান৷


তিনি বলেন, বাংলাদেশ ইসলাম ও ঈমানের উপর প্রতিষ্টিত একটি স্বাধীন রাষ্ট্র৷ এদেশের মানুষের প্রতিটি স্পন্দনে ইসলামের অবস্থান৷ কোন অপশক্তিই শত কলাকৌশলেও ইসলামকে উৎখাত করতে পারবেনা৷ 


 তবে বর্তমানে যেসব ইসলাম বিরুধী কর্মকান্ড হচ্ছে তা সত্যিই উদ্বেগজনক৷ এসব ঘটনাকে বিচ্ছিন্নভাবে দেখার সুযোগ নেই। এগুলো ইসলাম ও দেশ বিরোধী গোষ্ঠীর গভীর চক্রান্তের অংশ। সরকার, বিশেষ করে স্থানীয় প্রশাসনের উচিত তড়িৎ গতিতে অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা। এবং সঠিক বিচারের মাধ্যমে অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত করা৷

কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.